-25%

Ocimum Sanctum( তুলসী পাতা গুড়া )

৳ 75.00

দিন দিন কাহিল হয়ে পড়ছেন? এনার্জি পাচ্ছেন না? আপনার সামনেই আছে ঔষধি গাছের রানি। তুলসি। দুটো তুলসি পাতাই বদলে দেবে জীবনী শক্তি। স্বাস্থ্য হোক বা স্কিন, তুলসি তুলনাহীন। বর্ষা মানেই হাঁচি, কাশি, সর্দি, জ্বর। চটজলদি এবং দীর্ঘস্থায়ী সমাধান কী? হাতের নাগালেই রয়েছে এমন ঘরোয়া টোটকা, যাতে সর্দি, কাশি বলবে পালাই পালাই।তুলসী পাতা রক্তের সুগারের মাত্রা ও কোলেস্টেরল দুটোই কমাতে সাহায্য করে, যার ফলে খুব সহজেই আপনি ওজন বৃদ্ধির হাত থেকে মুক্তি পেতে পারেন। ক্যানসার প্রতিরোধ করতে তুলসী পাতা খুবই উপকারী। তুলসী পাতায় রয়েছে রেডিওপ্রটেকটিভ উপাদান, যা টিউমারের কোষগুলোকে মেরে ফেলে। তুলসী পাতায় থাকা ফাইটোকেমিক্যাল যেমন রোসমারিনিক অ্যাসিড, মাইরেটিনাল, লিউটিউলিন এবং এপিজেনিন ক্যানসারের বিরুদ্ধে খুবই কার্যকরী। অগ্ন্যাশয়ে যে টিউমার কোষ দেখা দেয়, তা দূর করতেও তুলসী উপকারী। ব্রেস্ট ক্যানসার প্রতিরোধ করতেও তুলসী পাতা খুব কার্যকরী।

20 in stock

৳ 75.00

20 in stock

Add to cart
Buy Now
Categories: ,

তুলসি কি ?

তুলসী অর্থ তুলনা নেই। ইংরেজি অর্থ নাম Holy Tulasi এর বৈজ্ঞানিক নাম Ocimum Sanctum। তুলসী গাছ লামিয়াসি পরিবারের অন্তর্গত একটি সুগন্ধী উদ্ভিদ। তুলসী মূলত একটি ঔষধি উদ্ভিদ। মূলত দক্ষিন এশিয়ার বিভিন্ন দেশে এই উদ্ভিদের বেশি দেখা মেলে। তুলসী চাষের জন্য আলাদা বিশেষ যত্ন নিতে হয় না। রাস্তার ধারে, বাগানে-বনে এমনিতে জন্মে। তুলসী একটি ঘন শাখা প্রশাখা বিশিষ্ট ২/৩ ফুট উঁচু একটি  চিরহরিৎ গুল্ম।  এর মূল কাণ্ড কাষ্ঠল, পাতা  ২-৪ সেন্টিমিটার লম্বা হয়। পাতার কিনারা খাঁজকাটা, শাখাপ্রশাখার অগ্রভাগ হতে ৫টি পুষ্পদণ্ড বের হয় ও প্রতিটি পুষ্পদণ্ডের চারদিকে ছাতার আকৃতির মত ১০-২০ টি স্তরে ফুল থাকে। প্রতিটি স্তরে ৬টি করে ছোট ফুল ফোটে। এর পাতা, ফুল ও ফলের একটি ঝাঁঝালো গন্ধ আছে। তুলসী গাছ পরিবেশে প্রচুর পরিমানে অক্সিজেন সরবরাহ করে, একারণে একে ‘অক্সিজেনের ভাণ্ডার বলা হয়ে থাকে ।

তুলসি পাতার উপকারিতা কি কি ?

শ্বাস প্রশ্বাসের সমস্যা

ঠান্ডা লাগলে তুলসী পাতা ম্যাজিকের মতো কাজ করে। গলার সব রকম সমস্যায় তুলসী পাতা ব্যবহৃত হয়। তুলসী-মধু একটি চমৎকার ঘরোয়া উপাদান কাশি কমানোর জন্য। এটি শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা কমাতে কাজ করে।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে

ডায়বেটিস প্রতিরোধে তুলসি পাতা অনেক বেশিই উপকারিতা রয়েছে। কারণ তুলসী পাতার খেলে রক্তে সুগারের মাত্রা কমে যায়। সেইসাথে তুলসী পাতা অ্যান্টি-ডায়াবেটিক ওষুধের মতো কাজ করে থাকে। সুতরাং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে তুলসী পাতা খেতে পারেন।

হার্টের অসুখ

তুলসী পাতায় আছে ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এই উপাদানগুলো হার্টকে বিভিন্ন সমস্যা থেকে মুক্ত রাখে সহায়তা করে। তুলসী পাতা হার্টের কর্মক্ষমতা বাড়ায় ও এর স্বাস্থ্য ভালো রাখে।

মানসিক চাপ

তুলসীর ভিটামিন সি ও অন্যান্য অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলো মানসিক চাপ কমাতে সহায়তা করে। এই উপাদানগুলো নার্ভকে শান্ত করে। এ ছাড়াও তুলসী পাতার রস শরীরের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে।

মাথা ব্যথা

মাথা ব্যথা ও শরীর ব্যথা কমাতে তুলসী খুবই উপকারী। এর বিশেষ উপাদান মাংশপেশীর খিঁচুনি রোধ করতে সহায়তা করে।

বয়স রোধ করা

ভিটামিন সি, ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস ও এসেন্সিয়াল অয়েলগুলো চমৎকার অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের হিসেবে কাজ করে যা বয়সজনিত সমস্যাগুলো কমায়। তুলসী পাতাকে যৌবন চিরকাল ধরে রাখার টনিক ও মনে করেন কেউ কেউ।

রোগ নিরাময় ক্ষমতা

তুলসী গাছের ঔষধি-গুণাবলি সমৃদ্ধ গাছ। তুলসীকে নার্ভের টনিক বলা হয় এবং এটা স্মরণশক্তি বাড়ানোর জন্য বেশ উপকারী। এটি শ্বাসনালী থেকে শ্লেষ্মাঘটিত সমস্যা দূর করে। তুলসী পাতা পাকস্থলীর ও কিডনির স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী।

ত্বকের সমস্যা

তুলসী পাতার রস ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। তুলসী পাতা বেঁটে সারা মুখে লাগিয়ে রাখলে ত্বক সুন্দর ও মসৃণ হয়। এ ছাড়াও তিল তেলের মধ্যে তুলসী পাতা ফেলে হালকা গরম করে ত্বকে লাগালে ত্বকের যে কোনও সমস্যায় বেশ উপকার পাওয়া যায়। এ ছাড়াও ত্বকের কোনও অংশ পুড়ে গেলে তুলসীর রস এবং নারকেলের তেল ফেটিয়ে লাগালে জ্বালা কমবে এবং সেখানে কোনও দাগ থাকবে না।

অ্যালার্জি কমায়

তুলসী ও মধুর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিসেপটিক উপাদান। এটি ত্বককে প্রশমিত করে এবং অ্যালার্জি কমায়।

 হৃৎপিণ্ডকে ভালো রাখে

তুলসী ও মধু কোলেস্টেরলের মাত্রাকে কমায়। এটি রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়। এটি হৃৎপিণ্ডকে ভালো রাখতে কাজ করে।

তুলসি পাতার অপকারিতা কি ?

যে কারণে তুলসি পাতা গিলে খেতে বলা হয়। নিউট্রশনিস্টদের মতে, তুলসি পাতায় পারদ ও আয়রনের মাত্রা খুব বেশি থাকে। তুলসি পাতা চিবোলে এই মিনারেলগুলো নির্গত হয় যা দাঁতের ক্ষয় করে ও ছোপ ফেলে দেয়। তুলসি পাতা কিছুটাও অ্যাসিডিকও। আবার মুখমন্ডল ক্ষারক জাতীয়। তাই তুলসি চিবোলে তা দাঁতের এনামেল নষ্ট করে দিতে পারে।

তুলসি পাতা খাওয়ার নিয়ম কি ?

তুলসি পাতা খাওয়ার সবচেয়ে সেরা উপায় হচ্ছে চায়ের সাথে খাওয়া। এই চা আপনার শরীরে রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করবে। এক কাপ হারবাল চায়ের জন্য ১/৪ কাপ পরিমাণ পাতা পানিতে দিয়ে ফুটিয়ে নিন এবং চুলা নিভিয়ে ১০-১২ মিনিট রেখে দিন। এর পর ছেঁকে এর মধ্যে এক চা চামচ পরিমাণ মধু ও দুই চা চামচ বা পরিমাণ মতো লেবুর রস দিয়ে চা বানিয়ে খেতে পারেন।

Weight .050 kg
Dimensions 6 × 8 cm

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “Ocimum Sanctum( তুলসী পাতা গুড়া )”
Review now to get coupon!

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shipping Details

  • Please pay more attention to your order address which MUST MATCH your shipping address. (If you’re from Russia, Please leave your full name. It is very important)
  • Items will be shipped within 3 business days after payment.
  • Please check items when delivered, if damaged, please kindly accept it and contact us immediately.  We will make a confirmation and resend you a new one.

 

Shipping By Shipping Cost Estimated Delivery Time Tracking Information
Thembay Express Free Shipping 12-20 days Not available
LEX $20.00 – $50.00 04-12 days Available
Lorem Ex $26.00 – $70.00 03-17 days Available

Packaging Details

  • Unit Type: piece
  • Package Size: 25cm x 32cm x 5cm (9.84in x 12.60in x 1.97in)
  • Package Weight: 0.56kg (1.23lb.)